প্রচ্ছদ » জাতীয় » বিস্তারিত

অনশন ভাঙলেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা

২০১৭ ডিসেম্বর ২৫ ১৮:০২:০১
অনশন ভাঙলেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : তিন দিন পর অনশন ভাঙলেন ‘বেতন বৈষম্য’ নিরসনের দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আন্দোলন চালিয়ে আসা প্রাথমিক শিক্ষকরা। প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজারের কাছ থেকে স্পষ্ট কোনো আশ্বাস না পেলেও নেতাদের অনুরোধে সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) অনশন ভেঙেছেন তারা।

শিক্ষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে সোমবার দুপুরে প্রায় দেড় ঘণ্টা আলোচনার পর সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যান প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী। সেখানে তিনি পানি ও ফলের রস খাইয়ে শিক্ষাকদের অনশন ভাঙান।

বাংলাদেশ প্রাথমিক সরকারি শিক্ষক মহাজোটের নেতা মো. শামসুদ্দীন সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার প্রেক্ষিতে আমরা অনশন কর্মসূচি স্থগিত করলাম। আমরা মন্ত্রীর সঙ্গে আরও আলোচনা চালিয়ে যাব।’

তবে সাধারণ শিক্ষকেরা এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। তারা চান, তাঁদের দাবি মানার ব্যাপারে মন্ত্রী শহীদ মিনারেই ঘোষণা দেন।
অনশন ভাঙিয়ে মন্ত্রী শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, দাবির বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আলোচনার টেবিলেই সমস্যার সমাধান হবে।
মন্ত্রীর বক্তব্যের মধ্যেই শিক্ষকেরা তাদের দাবির সপক্ষে স্লোগান দেন। তারা দাবি মানার ঘোষণা দিতে মন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান।
মন্ত্রী শিক্ষক নেতাদের অনশন ভাঙিয়ে ওই স্থান ত্যাগ করেন। এখনো সাধারণ শিক্ষকেরা সেখানে অবস্থান করছেন। পুলিশ তাদের শহীদ মিনার এলাকা ত্যাগ করতে হ্যান্ড মাইকে অনুরোধ জানায়।

রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গত শনিবার সকাল ১০টা থেকে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের ডাকে এই কর্মসূচি শুরু হয়। সহকারী শিক্ষকদের আটটি সংগঠন এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে। সংগঠনের নেতারা ঘোষণা দিয়েছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা অনশন চালিয়ে যাবেন।

আন্দোলনকারী বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের একজন নেতা মোহাম্মদ সামছুদ্দীন জানিয়েছেন, সোমবার পর্যন্ত প্রায় ৪০ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৭ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। আর কয়েকজন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার এক নারী শিক্ষক বলেন, শনিবার থেকে তিনি এখানেই পলিথিনের নিচে থাকছেন। তিন দিন ধরে তিনি এক কাপড়েই আছেন।

শিক্ষকেরা বলছেন, তারা এক দফা দাবিতে এখানে আন্দোলন করছেন। তাদের দাবি, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচে রাখতে হবে। বর্তমানে প্রধান শিক্ষকদের চেয়ে তিন ধাপ নিচের স্কেলে বেতন পান প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকেরা। বর্তমানে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকেরা বেতন স্কেলের ১১তম গ্রেডে (এই গ্রেড শুরুর মূল বেতন ১২,৫০০ টাকা) বেতন পান। আর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকেরা পান ১৪তম গ্রেডে (এই গ্রেডের শুরুর মূল বেতন ১০,২০০ টাকা)।

(দ্য রিপোর্ট/জেডটি/ডিসেম্বর ২৫, ২০১৭)