Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » জাতীয় » বিস্তারিত

৩ মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে সম্পাদক পরিষদ

২০১৮ সেপ্টেম্বর ৩০ ১৩:৩২:২৭
৩ মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে সম্পাদক পরিষদ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সরকারের তিন মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টার সঙ্গে বৈঠকে বসেছে সম্পাদক বিভিন্ন গণমাধ্যমের সম্পাদকদের সংগঠন সম্পাদক পরিষদ।

রোববার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুর পৌনে ১টার দিকে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এই বৈঠক শুরু হয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত আছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। এছাড়া, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টার ইকবাল সোবহান চৌধুরী এতে উপস্থিত আছেন।

অন্যদিকে, ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম, প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, মানবজমিনের প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, আমাদের নতুন সময় সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সম্পাদক, প্রকাশকরা উপস্থিত আছেন এই বৈঠকে।

এর আগে, শনিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মীর আকরাম উদ্দীন আহমেদ এই বৈঠকের তথ্য নিশ্চিত করেন।

উল্লেখ্য, গত ১৯ সেপ্টেম্বর বুধবার বহুল আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল পাস হয় জাতীয় সংসদে। এই আইনের বিভিন্ন ধারা নিয়ে সাংবাদিকদের আপত্তি থাকলেও তা আমলে নেওয়া হয়নি। বরং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের বিতর্কিত ৫৭ ধারাকে ভিন্নভাবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সংযোজন করা এবং ঔপনিবেশিক আমলের ‘অফিসিয়াল সিক্রেসি অ্যাক্ট ১৯২৩’কে এই আইনের ৩২ ধারায় সংযুক্ত করার মাধ্যমে তা গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে নতুন উদ্বেগ তৈরি করেছে বলে জানিয়েছেন গণমাধ্যমকর্মীরা।

সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল পর্যালোচনা করে দেখা যায়, আইসিটি আইনের ৫৭ ধারাকে বিলুপ্ত করা হলেও ওই ধারার বিষয়বস্তুকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৮, ২৯ ও ৩১ ধারায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আবার ৩২ ধারায় ‘অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট ১৯২৩’ যুক্ত করার মাধ্যমে সরকারি দফতরের তথ্য সংগ্রহের প্রক্রিয়ায় গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও নতুন আইনে ১৪টি ধারায় জামিন অযোগ্য অপরাধের কথা বলা হয়েছে।

এদিকে, আইন পাস হওয়ার পর সম্পাদক পরিষদসহ সাংবাদিকদের সব সংগঠন এই আইনের বিরোধিতা করেন। একইসঙ্গে সম্পাদক পরিষদ আইনটি পাস হওয়ায় উদ্বেগ জানিয়ে গত ২২ সেপ্টেম্বর পরিষদের বৈঠক শেষে এক বিবৃতি প্রকাশ করেন। বিবৃতিতে ২৯ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। পরে গত ২৬ সেপ্টেম্বর তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর সই করা এক চিঠি সম্পাদক পরিষদের কাছে পাঠানো হয়। চিঠিতে মানববন্ধন কর্মসূচি স্থগিত করে ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে বৈঠকে বসার আহ্বান জানান মন্ত্রী। সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে ২৬ সেপ্টম্বর সম্পাদক পরিষদ মানববন্ধন স্থগিত রেখে বৈঠকে অংশ নিজে রাজি হয়। একইসঙ্গে সম্পাদক পরিষদের পক্ষ থেকে বলা হয়, আলোচনা ফলপ্রসূ না হলে প্রতিবাদ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

(দ্য রিপোর্ট/এনটি/সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮)