Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » খেলা » বিস্তারিত

ভারতের কাছে ২ রানে হেরেছে বাংলাদেশ

২০১৮ অক্টোবর ০৪ ১৯:৪৩:০৯
ভারতের কাছে ২ রানে হেরেছে বাংলাদেশ

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: বাংলাদেশ ক্রিকেট দল এ পর্যন্ত নয়টি নকআউট ম্যাচ খেলেছে। হেরেছে সবকটিতে। এরমধ্যে পাঁচটিতে কাটা পড়েছে ভারতের কাছে।

সর্বশেষ এশিয়া কাপেও রোহিত শর্মাদের কাছে হেরেছে শেষ বলে। সেই হারের ঝাল ছাড়ার সুযোগ ছিল বাংলাদেশ যুবদের সামনে। সুযোগ ছিল নকআউট অভিশাপ বিদায় করে ভারতকে নকআউট করে দেওয়ার। কিন্তু যুবারা অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে ভারতের কাছে মাত্র ২ রানে হেরেছে।

বৃহস্পতিবার শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে ১৭২ রান তোলে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল। নাগালের মধ্যে ভারতকে আটকে রাখায় ফাইনালে যাওয়ার ভালো সুযোগ চলে আসে তৌহিদ হৃদয়দের সামনে। কিন্তু ১৭৩ রান তাড়া করতে নেমে ১৭০ রানে অলআউট হয়ে গেছে তারা। ভারত চলে গেছে ফাইনালে। দেশের মাটিতে বাংলাদেশ যুবা ক্রিকেটারদের ফাইনাল খেলার স্বপ্নে যতি চিহ্ন পড়েছে।

বাংলাদেশ শুরুর ৩ রানে ভারত যুবাদের প্রথম উইকেট তুলে নেয়। সেখান থেকে ৬৬ রান জুটি গড়ে দ্বিতীয় উইকেটে। এরপর ৭৭ রানে ভারত যুবাদের ৫ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। সুযোগ ছিল তাদের দেড়শ রানের নিচে আটকে দেওয়ার। কিন্তু পরে সামির চৌধুরী এবং অজয় গঙ্গাপুরাম ১৭ রান করে দলের রান বাড়িয়ে নেয়। শেষ পর্যন্ত ৩ বল বাকি থাকতে ১৭২ রানে অলআউট হয়ে যায় ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

জবাবে ব্যাট করা বাংলাদেশের যুবাদের শুরুও ভালো হয়নি। শুরুর ২১ রানে দুই উইকেট হারায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এরপর সামলে নেওয়ার চেষ্টা করলেও পারেনি তিনে ব্যাট করা মাহমুদুল হাসান জয়। তিনি ২৫ রানে ফিরে যান। এরপর ৬৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ যুবারা। সেখান থেকে শামীম হোসাইন এবং আকবর আলী ৭৪ রানের জুটি গড়ে লক্ষ্যের দিকে এগোচ্ছিল। কিন্তু আকবর আলী আউট হয়ে ফিরে গেলে আর পেরে উঠেনি যুবা দল।

উইকেটরক্ষক আকবর আলী নিজের ৪৫ রানে এবং দলের ১৩৯ রানে ফিরে যান। এরপর দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৯ রান করে দলীয় ১৬১ রানে আউট হন শামীম হোসাইন। দলের তখন ৮ উইকেট পড়ে গেছে। হাতে আছে আরও ৪৪ বল। কিন্তু শেষ দুই ব্যাটসম্যান ১২ রান আর করতে পারলেন না। ২২ বল হাতে থাকতে জয় থেকে ২ রান দূরে শেষ হয়ে গেলো বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ইনিংস।

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে শরিফুল ইসলাম ১০ ওভারে ১৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন। এছাড়া মৃত্যুঞ্জয়, তৌহিদ হৃদয় এবং রিশাদ ২টি করে উইকেট নেন। ভারতের হয়ে মোহিত এবং সিদ্ধার্ন্ত দেশাই ৩টি করে উইকেট নেন।

(দ্য রিপোর্ট/এমএসআর/অক্টোবর ০৪, ২০১৮)