Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত

গ্রেনেড হামলা রায়ের প্রতিবাদে বিএনপির বিক্ষোভ

২০১৮ অক্টোবর ১১ ১২:২৫:১১
গ্রেনেড হামলা রায়ের প্রতিবাদে বিএনপির বিক্ষোভ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ করছে বিএনপি।

বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের মোড় থেকে এ বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভের নেতৃত্ব দেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

এতে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরীসহ দলটির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কয়েকশ নেতাকর্মী অংশ নিয়েছেন।

এতে তারা মামলার রায়কে ফরফায়েশি আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাখ্যানের আহ্বান জানান।

একুশে আগস্ট নারকীয় গ্রেনেড হামলার মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টু, এনএসআইয়ের সাবেক দুই মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল (অব.) রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আবদুর রহিমসহ ১৯ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, সাবেক প্রতিমন্ত্রী কাজী শাহ মোফাজ্জল হোসেন কায়কোবাদসহ ১৯ আসামিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১৯ আসামির মধ্যে দুই আসামি পলাতক ও যাবজ্জীবন দণ্ডিত ১৯ জনের মধ্যে ১২ আসামি পলাতক রয়েছেন। এ ছাড়া রায়ে আনসার ও ভিডিপির সাবেক ডিজি মেজর জেনারেল (অব.) এটিএম আমিন, সাবেক তিন আইজিপি- মো. আশরাফুল হুদা, শহুদুল হক ও খোদা বক্স চৌধুরীসহ ১১ সাবেক সরকারি কর্মকর্তাকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এ ছাড়া রায়ে দণ্ডপ্রাপ্তদের ৫০ হাজার টাকা থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড দেয়া হয়।

বুধবার দুপুরে ঢাকার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিন পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে স্থাপিত জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় করা হত্যা ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে পৃথক দুটি মামলায় আসামিদের এ সাজা দেয়া হয়।

ভয়াবহ সেই ঘটনার ১৪ বছর এক মাস ২০ দিন পর চাঞ্চল্যকর এ দুটি মামলার রায় দেয়া হল। এর মধ্য দিয়ে ৪৯ আসামির সবারই সাজা হল। যদিও মামলার আসামি ছিল ৫২ জন।

এদের মধ্যে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, হুজি নেতা মুফতি আবদুল হান্নান ও শরিফ শাহেদুল ইসলাম বিপুলের অন্য মামলায় ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় বর্তমানে আসামি ৪৯ জন।

(দ্য রিপোর্ট/এনটি/অক্টোবর ১১, ২০১৮)