Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » অর্থ ও বাণিজ্য » বিস্তারিত

বাংলাদেশ ব্যাংককে শক্তিশালী করুন: আইএমএফ মিশন

২০১৯ আগস্ট ২৮ ১০:৫৩:১৯
বাংলাদেশ ব্যাংককে শক্তিশালী করুন: আইএমএফ মিশন

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: খেলাপি ঋণ আদায়ে প্রস্তাবিত অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির উপর আস্থা নেই ঢাকায় সফররত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)-এর ফাইন্যান্সিয়াল সেক্টর স্ট্যাবিলিটি রিভিউ (এফএসএসআর) মিশনের।

সংস্থাটি দেশের আর্থিক খাত বিশেষ করে খেলাপি ঋণ আদায়ে কোন কোম্পানি গঠন না করে নজরদারি বাড়ানোর উপর জোর দিয়েছে। এর পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংককে আরো শক্তিশালী করার পরামর্শ দিয়েছে।

মঙ্গলবার অর্থমন্ত্রনালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি। আইএমএফের মিশন প্রধান মিজ সুসান জর্জ এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব আসাদুল ইসলাম নিজ নিজ প্রতিনিধিদলের নের্তৃত্ব দেন। বৈঠকে দেশের আর্থিক খাতের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে। মিশনটি ১২ দিনের সফরে গত রোববার বাংলাদেশে এসেছে।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, খেলাপি ঋণ আদায়ে সরকার একটি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি গঠনের চিন্তা করছে। তাদের মাধ্যমে খেলাপি ঋণ আদায় করা হবে বলে এরআগে অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল যে ঘোষনা দিয়েছিলেন আইএমএফ তার বিরোধীতা করেছে।

বৈঠকে আইএমএফ প্রতিনিধিদল খেলাপি ঋণ আদায়ে বিশ্বের বেশ কটি দেশ অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি গঠন করেছিল বলে উল্লেখ করে। তাদের ফলাফল আশানুরূপ হয়নি বলে আইএমএফ প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে খেলাপি ঋণ আদায়ে অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি গঠন ফলপ্রসূ হবে না জানিয়েছে। এর বিপরীতে আইএমএফের পক্ষ থেকে ব্যাংকিং খাতে নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংককে আরো ক্ষমতাশালী করে তাদের স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে তারা। একই সঙ্গে বিভিন্ন সরকারি ব্যাংকে পরিচালনা পর্ষদে কাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এবং তাদের যোগ্যতা সম্পর্কেও জানতে চায়।

এ সময় সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, খেলাপি ঋণ আদায়ে সরকার সুনির্দিষ্ট দু’টি পদক্ষেপ নিয়েছে। একটি হচ্ছে অনিচ্ছায় বা পরিস্থিতির শিকার হয়ে যারা খেলাপি হয়েছেন তাদের ঋণ নিয়মিতকরণের জন্য একটি ‘এক্সিট প্ল্যান’ ঘোষণা।

এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে খেলাপি ঋণ অনেক কমে যাবে। একই সঙ্গে সবচেয়ে খারাপ খেলাপি ঋণ আদায়ের জন্য একটি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি গঠন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ জন্য গত মার্চ মাসে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটিও গঠন করা হয়েছে। এ সময় আইএমএফের পক্ষ থেকে অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি গঠন নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। বিভিন্ন দেশের উদাহরণ টেনে বলা হয়, এ ধরনের কোম্পানি গঠন করে উল্লেখ করার মতো খেলাপি ঋণ আদায় করা যায়নি। তাই বাংলাদেশে এই কোম্পানি গঠন বা নিয়োগ দেওয়ার কোনো যৌক্তিকতা নেই।

এর জবাবে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, অন্য দেশে ব্যর্থ হলে যে অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি এখানেও খেলাপি ঋণ আদায়ে ব্যর্থ হবে তা বলা যায় না। আগে এটি গঠন করা হোক, তারপর সফলতা-বিফলতা মূল্যায়ন করা হবে।

এছাড়াও খেলাপি ঋণ আদায়ে সরকারের এক্সিট প্ল্যান নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন আইএমএফ প্রতিনিধিরা। তারা বলেন, এ ধরনের উদ্যোগ ভালো ঋণ গ্রহীতাদের খেলাপি হওয়ার দিকে ঠেলে দিতে পারে। আর এতে খেলাপি ঋণ কতখানি কমবে তা অনিশ্চিত। সরকারের উচিত বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিয়ে খেলাপি ঋণ আদায় ত্বরান্বিত করা।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/আগস্ট ২৮ ,২০১৯)