Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » জেলার খবর » বিস্তারিত

‘আমি বিচার চাই, নয়তো আমাকে মেরে ফেলুন’

২০১৯ অক্টোবর ০৯ ২২:৩৪:০০
‘আমি বিচার চাই, নয়তো আমাকে মেরে ফেলুন’

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের ছোট ভাই আববার ফাইয়াজ তার ভাইয়ের হত্যার বিচার চেয়ে ফেসবুকে এক স্ট্যাটাস দিয়েছেন। আজ বুয়েটের উপাচার্য নিহত আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করতে গেলে পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয় ফাইয়াজ। এছাড়া আহত হয় আরও পাঁচজন।

কুষ্টিয়ার এডিশনাল এসপি মুস্তাফিজুর রহমানের বিপক্ষে মারধরের অভিযোগ এনে ফাইয়াজ বিচার দাবি করেন। এছাড়া বিচার না পেলে মেরে ফেলতে অনুরোধ জানান নিহতের ভাই। ফাইয়াজের ফেসবুক পোস্টটি ছিল এইরকম-

‘আজকে কুষ্টিয়ার এডিশনাল এসপি মোস্তাফিজুর রহমান কোথা থেকে সাহস পায় আমার গায়ে হাত দেয়ার? আমার ভাবি কে মারছে। নারীদের গায়ে নিষ্ঠুরভাবে হাত দেয়? এই চাটুকার দের কি বিচার হবে না? তিনি কালকে ২ মিনিটে জানাযা শেষ করতে বলেন কিভাবে? যেই ছাত্রলীগ মারল তারা কেন সর্বত্র? বিচার চাই, আমি বিচার চাই নয়তো আমাকে মেরে ফেলুন। মারলে আমার বাবা-মা কষ্ট একবারে পাবে।’

এর আগে আজ নিহত বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের ছোট ভাই আবরার ফায়াজকে পিটিয়েছে পুলিশ। ফাহাদের কবর জিয়ারত শেষে বুয়েট উপাচর্য সাইফুল ইসলাম ফাহাদের বাড়িতে প্রবেশ করতে গেলে বাধা দেয় গ্রামবাসী। এসময় গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে ভিসি ফাহাদের বাড়ি যেত পারেননি।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ এগিয়ে আসে। এতে গ্রামবাসীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বাধে। এসময় আবরারের ছোট ভাই ফায়াজ ছাড়াও তার ফুপাতো ভাইয়ের স্ত্রী ও আরও একজন নারী আহত হন।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/অক্টোবর ০৯,২০১৯)