Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » বিশ্ব » বিস্তারিত

পশ্চিমবঙ্গের ভোট বিশ্লেষণ: তৃতীয় দফায় ভোট পড়লো ৮২ শতাংশ

২০২১ এপ্রিল ০৭ ১৫:১৫:৫৩
পশ্চিমবঙ্গের ভোট বিশ্লেষণ: তৃতীয় দফায় ভোট পড়লো ৮২ শতাংশ

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে মঙ্গলবার তৃতীয় দফার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩ জেলার ৩১টি আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় গতকাল। কমিশন জানিয়েছে, মঙ্গলবার সব মিলিয়ে রাজ্যে ৮২.৬২ শতাংশ ভোট পড়েছে। যদিও আগের দু’দফার তুলনায় তা খানিকটা কম।

বিধানসভার ২৯৪টি আসনের মধ্যে ভোট হয়েছে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ১৬টি, হাওড়ার ৭টি ও হুগলি জেলার ৮টি আসনে। স্থানীয় সময় সকাল সাতটা থেকে শুরু হয় ভোট গ্রহণ। চলেছে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত। এর আগে দু’দফা বিধানসভা নির্বাচনে ৯টি জেলার ৬০টি আসনে ভোট পড়ে ৮৪ ও ৮৬ শতাংশ।

হাওড়া এবং হুগলি, দুই জেলাতেই কার্যত পেশীশক্তির লড়াই হয়েছে তৃণমূল এবং বিজেপি-র মধ্যে। উলুবেড়িয়া দক্ষিণে আক্রান্ত হন বিজেপি প্রার্থী পাপিয়া অধিকারী। সেখানে তৃণমূল সমর্থকদের বিরুদ্ধে তাঁকে চড় মারার অভিযোগ ওঠে। তার পরেও ৮৩.৫৫ শতাংশ ভোট পড়ে হাওড়ায়।

তবে এগিয়ে ছিল হুগলি। গোঘাটে বুথে ভোট দিয়ে ফেরার পথে মৃত্যু হয় এক তৃণমূল নেতার। বিজেপি-র লোকজন তাঁকে ধাক্কা মেরে রাস্তায় ফেলে দেন এবং তাতেই গুরুতর আঘাত পেয়ে তাঁর মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করে তৃণমূল। আরামবাগ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মণ্ডল খাঁর উপর একাধিক জায়গায় হামলা হয়। তার পরেও দিনের শেষে দেখা যায় ৮৩.৭৫ শতাংশ ভোট পড়েছে সেখানে।

দক্ষিণ ২৪ পরগনায় লড়াইটা তৃণমূল বনাম বিজেপি-র পরিবর্তে, তৃণমূল বনাম আইএসএফ হয়ে দাঁড়ায়। নানা রকম সহিংস ঘটনা ঘটতে থাকে দিনভর। দিনের শেষে দেখা যায়, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৮১.৬৪ শতাংশ ভোট পড়েছে।

আগের দুই দফার তুলনায় এবারের ভোটের দিন বেশি সহিংসতার ঘটনা ঘটে। বেশ কয়েকজন নিহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দিনব্যাপি ভোটের পরিবেশ ছিলো উত্তপ্ত। বিচ্ছিন্ন সহিংস ঘটনায় গতরাতেই আটক করা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে।

প্রথম দু’দফা ভোটে ৩ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও নির্বাচন কমিশন জানায় ভোটের সঙ্গে তাদের নিহত হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই।

তৃতীয় দফায় ভোট কারচুপিসহ নানা রকমন অভিযোগ উঠায় একসঙ্গে কলকাতার ৮টি আসনের রিটার্নিং অফিসারকে সরিয়ে দেয় নির্বাচন কমিশন। তবে সার্বিক দিক বিবেচনায় ভোটের মাঠ ভাল ছিলো এমন দাবি কমিশন কর্মকর্তাদের। বাংলার মানুষ স্বতস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছে বলছেন তারা।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/০৭ এপ্রিল, ২০২১)