প্রচ্ছদ » শিল্প ও সংস্কৃতি » বিস্তারিত

রবিশঙ্করের ‘লয়ের পুতুল’ বিরজু মহারাজ আর নেই

২০২২ জানুয়ারি ১৭ ১১:০৪:৫০
রবিশঙ্করের ‘লয়ের পুতুল’ বিরজু মহারাজ আর নেই

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: রবিশঙ্কর তাঁর নাচ দেখে বলেছিলেন, ‘তুমি তো লয়ের পুতুল’! কত্থকের সেই ‘মহারাজা’ আর নেই। রবিবার রাতে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন কিংবদন্তি শিল্পী পণ্ডিত বিরজু মহারাজ। ৮৩ বছর বয়সে। একাধারে নাচ, তবলা এবং কণ্ঠসঙ্গীতে সমান পারদর্শী ছিলেন বিরজু। ছবিও আঁকতেন।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) রাতে নাতির সঙ্গে খেলছিলেন। তখনই হঠাৎ করে অসুস্থ বোধ করেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন তিনি। সম্প্রতি তাঁর কিডনির অসুখ ধরা পড়েছিল। ডায়ালিসিস চলছিল।

তার নাতনি রাগিনি মহারাজ ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআইকে বলেছেন, গেল প্রায় এক মাস ধরেই তার চিকিৎসা চলছিল। গত রাতে সোয়া ১২টা থেকে সাড়ে ১২টার দিকে হঠাৎ শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন তিনি। এর ১০ মিনিটের মধ্যেই তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়, কিন্তু তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

বিরজু মহারাজ শুধু ভারত নয়, এই উপমহাদেশে কত্থক নৃত্যশিল্পের সম্রাট। তার মৃত্যুতে কত্থক নাচের মহাগুরুর নিষ্ক্রমণ ঘটলো।

বিরজু মহারাজ ছিলেন লখনৌ কালকি বিন্দানি ঘরানার অনুসারী। দেশে-বিদেশে তাঁর অসংখ্য ছাত্র ছাত্রী রয়েছে।

১৯৩৭ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি লখনৌয়ের এক কত্থক নৃত্যশিল্পীদের পরিবারে জন্ম বিরজু মহারাজের। তার আসল নাম ব্রিজমোহন নাথ মিশ্র, ছোট থেকেই নাচ-গানের পরিবেশে বেড়ে ওঠা তার।

তার দুই কাকা শম্ভু মহারাজ ও লাচ্ছু মহারাজও ছিলেন একই ঘরানার শিল্পী। বিরজু মহারাজ প্রথম পাঠ নেন তার বাবা আচ্চন মহারাজের কাছ থেকে। পরবর্তী পর্বে তিনি নিজেই একটি প্রতিষ্ঠান বলে গণ্য হন। দেশে বিদেশে তার কত্থক নাচ আদৃত হয়। তিনি বহু সিনেমাতে নৃত্য পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। বিদেশী রাষ্ট্রনায়করা ভারতে এলেই বিরজু মহারাজের ডাক পড়তো নৃত্যকলা প্রদর্শনের জন্য। আন্তর্জাতিক বহু অনুষ্ঠানে তিনি ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।
খবর এনডিটিভি

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/১৭ জানুয়ারি, ২০২২)