Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » শেয়ারবাজার » বিস্তারিত

আইডিএলসি ফাইন্যান্সের প্রথম প্রান্তিক প্রকাশ

২০১৮ এপ্রিল ২৭ ১৮:২৪:৪২
আইডিএলসি ফাইন্যান্সের প্রথম প্রান্তিক প্রকাশ

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি আইডিএলসি ফাইন্যান্সের চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রথম প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির কর-পরবর্তী মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় বেড়েছে ১৮ শতাংশ। তবে পুঁজিবাজার-সংশ্লিষ্ট সাবসিডিয়ারির মুনাফা কমায় কোম্পানিটির সম্মিলিত নিট মুনাফা ২০১৭ সালের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ৮ শতাংশ কমে গেছে।

সর্বশেষ অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, প্রথম প্রান্তিকে আইডিএলসি ফিন্যান্সের শেয়ারপ্রতি সম্মিলিত মুনাফা (কনসলিডেটেড ইপিএস) দাঁড়িয়েছে ১ টাকা ৪৬ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ১ টাকা ৭০ পয়সা। ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য দাঁড়ায় ৩১ টাকা ৮৭ পয়সা। এককভাবে আইডিএলসি ফিন্যান্সের ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৯৫ পয়সা।

প্রান্তিক ফলাফল পর্যালোচনায় আইডিএলসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ খান ঋণ বিতরণ ব্যবসার প্রবৃদ্ধিতে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, গত বছরের শেষ প্রান্তিক থেকে অস্থিতিশীল বাজার পরিস্থিতিতেও আমাদের ঋণদান ব্যবসায় ভালো প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। দূরদর্শী কৌশলের কারণে তারল্য সংকটের প্রতিকূলতা এড়িয়ে আমরা ঋণ বিতরণ অব্যহত রাখতে পেরেছি। একই সঙ্গে আমানতকারীদের স্বার্থও সংরক্ষণ করতে সক্ষম হয়েছি। তবে পুঁজিবাজার-সংশ্লিষ্ট ব্যবসাগুলোর প্রতিকূল পরিস্থিতির বিষয়টি স্বীকার করেছেন তিনি। এখানে মনোনিবেশ করে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য আরো ভালো ফলাফল এনে দেয়ার ঘোষণা দেন তিনি।

তিন মাসে ব্যবসার বিস্তারিত সম্পর্কে তিনি জানান, জানুয়ারি-মার্চ সময়ে আইডিএলসিতে ২ হাজার ৮৪০ জন গ্রাহক যোগ হয়েছে। এ সময় আইডিএলসির ঋণ পোর্টফোলিও ৭ শতাংশ বেড়ে ৭ হাজার ৬৪৫ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। এ প্রবৃদ্ধিতে মূল ভূমিকা রেখেছে করপোরেট ও এসএমই ঋণ। প্রথম প্রান্তিকে আইডিএলসির করপোরেট ঋণ ১৯ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭১৫ কোটি টাকা, যা তাদের পোর্টফোলিওর ২৩ শতাংশ। এসএমই ঋণ ৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ২৬৫ কোটি টাকা, যা মোট ঋণের ৪৪ শতাংশ। এর বাইরে ভোক্তাঋণ ৩ শতাংশ বেড়ে ২ হাজার ৪৮৬ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে, যা মোটের এক-তৃতীয়াংশ।

প্রথম প্রান্তিক শেষে আইডিএলসি ফিন্যান্সের অনাদায়ী ঋণের হার ২ দশমিক ৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, ৩১ ডিসেম্বর যা ছিল ২ দশমিক ৭৭ শতাংশ। অনাদায়ী ঋণ সর্বনিম্নে নামিয়ে আনতে কিস্তি আদায় প্রচেষ্টা জোরদার করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন আরিফ খান।

সাবসিডিয়ারিগুলোর পারফরম্যান্স পর্যালোচনা কালে তিনি জানান, পুঁজিবাজার-সংশ্লিষ্ট সাবসিডিয়ারিগুলোর মধ্যে সম্পদ ব্যবস্থাপনা ব্যবসার আয় প্রবৃদ্ধি অব্যহত রয়েছে। প্রথম প্রান্তিকে আইডিএলসি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের মুনাফা প্রবৃদ্ধি ৫৩ শতাংশ। তবে বাজার পরিস্থিতির কারণে ব্রোকারেজ সাবসিডিয়ারি আইডিএলসি সিকিউরিটিজের মুনাফা ৫৮ শতাংশ ও মার্চেন্ট ব্যাংক আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টসের মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ১৫ শতাংশ কমে গেছে।

প্রথম প্রান্তিকে সম্পদের বিপরীতে আইডিএলসির সম্মিলিত রিটার্ন (কনসলিডেটেড আরওএ) দাঁড়িয়েছে ২ দশমিক ২৯ শতাংশ। ইকুইটির বিপরীতে রিটার্ন (আরওই) দাঁড়িয়েছে ১৭ দশমিক ২৯ শতাংশ।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল আইডিএলসি শেয়ারের সমাপনী দর আগের দিনের চেয়ে কিছুটা কমে দাঁড়ায় ৬৯ টাকা ৯০ পয়সা।

(দ্য রিপোর্ট/এনটি/এপ্রিল ২৭, ২০১৮)