Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » অপরাধ ও আইন » বিস্তারিত

মোবাইলে ইউক্রেনে যোগাযোগ করে বুথ থেকে টাকা তোলা হয়: পুলিশ

২০১৯ জুন ০৪ ১৭:৫০:৫৫
মোবাইলে ইউক্রেনে যোগাযোগ করে বুথ থেকে টাকা তোলা হয়: পুলিশ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: ইউক্রেনের জালিয়াত চক্রের সদস্যরা বুথে ঢুকে ইউক্রেন থেকে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে বুথের স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ করে দিতো। এরপর মেশিনে এটিএম কার্ড ঢুকিয়ে টাকা তুলে নিতো।

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের বাড্ডার এটিএম বুথ থেকে এভাবেই তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার আবদুল বাতেন।

তিনি বলেন, জালিয়াত চক্রটি ইউক্রেনের মোবাইল সিম রোমিং করে যোগাযোগ করত। তারা একটি ডিসকাউন্ট কার্ড ব্যবহার করে এটিএম বুথ থেকে টাকা বের করে আনত।

গত ১ জুন রাত পৌনে ৮টার দিকে খিলগাঁও থানাধীন তালতলা মার্কেটের বিপরীতে ডাচ্‌-বাংলা বুথে জালিয়াত চক্রের দুই সদস্য নিজেদের চেহারা আড়াল করতে মুখোশ ও টুপি পরিহিত অবস্থায় বুথে ঢোকে। সিকিউরিটি গার্ড জালাল তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক বলে মনে করে। সন্দেহভাজন দু'জনকে ধরার চেষ্টা করলে তারাও পালাতে চায়। এরপর স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় দেনিস ভেতোমস্কি নামে এক বিদেশিকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়।

খবর পেয়ে খিলগাঁও থানা পুলিশের একটি দল সেখানে যায়। তখন জানা যায়, দেনিস ইউক্রেনের নাগরিক। পরে থানা পুলিশ, ডিবি ও সিআইডির একটি যৌথ দল দেনিসকে নিয়ে পান্থপথের ওলিও ড্রিম হোটেলে অভিযান চালায়। সেখান থেকে গ্রেফতার করা হয় আরও পাঁচজনকে। তারা হলেন ভালোদিমির ত্রিশেনসকি, নাজারি ভজনোক, সের্গেই উকরাইনেতসআলেগ শেভচুক, আলেগ শেভচুক ও ভাটালি কিলিমচুক। তারাও ইউক্রেনের নাগরিক। তাদের কাছ থেকে ম্যাগনেটিক কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, মোবাইল, ট্যাবসহ অন্যান্য আলামত উদ্ধার করা হয়।

তদন্তে জানা যায়, এই ছয় আসামি সংঘবদ্ধ আন্তর্জাতিক জালিয়াত চক্রের সদস্য। তারা অভিনব কৌশল অবলম্বন করে ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করেন। ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা তোলার জন্য এই আসামিরা বাংলাদেশে এসেছেন। গত শনিবার সকালে বাড্ডার এটিএম বুথ থেকে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রের সদস্যরা।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, টাকা উত্তোলনের সময় মুখে মাস্ক পরিহিত অবস্থায় ছিল জালিয়াত চক্রের সদস্যরা। চোখে ছিল সানগ্লাস ও মাথায় টুপি। এদিকে অভিনব কৌশলে এটিএম বুথে জালিয়াতির ঘটনায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও ব্যাংকারদের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এর আগে এটিএম থেকে যত অর্থ চুরি হয়েছে, প্রতিবার গ্রাহকের কার্ডের তথ্য চুরি করে ক্লোন কার্ড তৈরি করে জালিয়াত চক্র। এতে গ্রাহক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এবারের ঘটনায় পুরো এটিএম বুথের নিয়ন্ত্রণ নেয় জড়িত বিদেশিরা। এতে দেশের এটিএম সেবার নিরাপত্তা নিয়ে নতুন করে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এমন বাস্তবতায় যে কোনো বিদেশি নাগরিক এটিএম বুথে ঢুকলে তার ওপর নজর রাখার পাশাপাশি সর্বোচ্চ সতর্ক (রেড অ্যালার্ট) থাকার জন্য এটিএম বুথের নিরাপত্তাকর্মীদের বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে ব্যাংকগুলো।

জালিয়াতির মাধ্যমে এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলার অভিযোগে ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংকের ডেলিভারি চ্যানেলের হেড অব অলটারনেট মশিউর রহমান বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে খিলগাঁও থানায় গত রোববার মামলা করেন। এজাহারে মশিউর বলেন, সংঘবদ্ধ জালিয়াত চক্রটি খিলগাঁও তালতলা মার্কেটের সামনের ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথসহ আমাদের অন্যান্য বুথ থেকে ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে এটিএম বুথের টাকা উত্তোলন করছে।

(দ্য রিপোর্ট/এমএসআর/জুন ০৪, ২০১৯)