Airtel & Robi User Only

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত

‘টর্চার সেলটি অমিত সাহার’

২০১৯ অক্টোবর ০৯ ১৪:১৩:৩০
‘টর্চার সেলটি অমিত সাহার’

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: গোটা দেশটিকে টর্চার সেলে পরিণত করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘যার রুমে যার উপস্থিতিতে আবরারকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয় সেই অমিত সাহার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এজাহারে তার নাম নেই, তাকে বহিষ্কারও করেনি ছাত্রলীগ। শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর রুম তথা টর্চার সেলটি অমিত সাহার ।’

বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘‘অধিকাংশ পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে:’ আবরারকে মারার সময় অমিত সাহা সেখানে উপস্থিত ছিল এবং সে মারামারিতে অংশ নেয়। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর অন্যরা লাশ নিয়ে গেলেও অমিত সাহা তার রুমেই ছিল। আবরারে ওপর যখন টর্চার চলে তখন পুলিশ খবর পেয়েও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।’’

রিজভী বলেন, ‘মূলত দেশের মাটি, পানি, আকাশের স্বার্থে স্ট্যাটাস দেয়ায় বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আবরারের স্ট্যাটাসের পেছনে কারণই ছিল দেশবিরোধী চুক্তির বিরোধীতা ও সত্য ইতিহাস তুলে ধরা।’

মৃতুঞ্জয়ী আবরার ফাহাদ দেশের জন্য জীবন দিয়ে মৃত্যুকে জয় করেছে উল্লেখ করে এই বিএনপি নেতা বলেন, ‘এ দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার যুদ্ধের প্রধান প্রেরণা হয়ে থাকবে আবরার ফাহাদ। আবরার ফাহাদ আমাদের প্রাণের পতাকা।’

গোটা দেশকে এখন একটি টর্চার সেলে পরিণত করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো এখন কন্সেন্ট্রেশন ক্যাম্প। সবাই এখন লিগের টর্চার সেলের নির্মম শিকার। আপনারা দেখেছেন, যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তারের পর সেখানে পাওয়া গেছে আধুনিক টর্চার সেল। যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন সম্রাটের অফিসে পাওয়া গেছে টর্চার সেল। বুয়েট ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক অমিত সাহার ২০১১ নম্বর কক্ষ যেখানে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়, সেই কক্ষটিও একটি টর্চার সেল।’

ফাহাদের নির্মম মৃত্যু কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয় উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ‘এটি ক্ষমতাসীনদের খুনের সংস্কৃতির ধারাবাহিক চর্চার একটি অংশ মাত্র। বাংলাদেশের মানুষের পক্ষের মানুষের ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার সময় এসেছে। এই সরকারের হাত থেকে দেশকে মুক্ত করে মানুষের অধিকার মানুষের হাতে ফিরিয়ে দিতে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধের বিকল্প নেই।’

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/অক্টোবর ০৯,২০১৯)